সাভারে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে স্কুলছাত্রকে ঘাড় মটকে হত্যা
আগস্ট ১৬, ২০১৮
পটুয়াখালীর বাউফলে যথাযথ মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালিত
আগস্ট ১৬, ২০১৮

লিবিয়ায় হত্যার দায়ে ৪৫ জনের মৃত্যুদণ্ড

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলিতে ২০১১ সালে প্রেসিডেন্ট মোয়াম্মার গাদ্দাফির বিরুদ্ধে গণঅভ্যুত্থানকালে বিক্ষোভকারীদের নির্বিচারে গুলি করে হত্যার দায়ে ৪৫ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন দেশটির একটি আদালত।

বুধবার (১৫ আগস্ট) আদালত ওই ৪৫ জনকে ফায়ারিং স্কোয়াডে নিয়ে গুলি করে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের এ আদেশ দেন।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, দণ্ডপ্রাপ্তদের একটি মিলিশিয়া গোষ্ঠীর সদস্য বলছে স্থানীয় পশ্চিমাপন্থি সরকার। গাদ্দাফির বিরুদ্ধে লাখো জনতা রাস্তায় নেমে এলে এই গোষ্ঠীর সদস্যরা তখন নির্বিচারে গুলি ছোড়ে এবং অনেককে হত্যা করে। ধারণা করা হচ্ছে, গাদ্দাফির পতনের পর আফ্রিকার আরব দেশটিতে এখন পর্যন্ত এটিই সবচেয়ে বেশি মৃত্যুদণ্ডাদেশের ঘটনা।

সরকারি কৌঁসুলিরা জানান, ওই ঘটনায় আরও ৫৪ জনকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তবে মামলা থেকে রেহাই দেওয়া হয়েছে ২২ জনকে।

অভিযুক্তদের কবে গ্রেফতার করা হয়েছে কিংবা তাদের বিরুদ্ধে কবে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে, সেসব বিষয়ে কিছু স্পষ্ট করেননি রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলিরা।

সরকার এই দণ্ডপ্রাপ্তদের মিলিশিয়া গোষ্ঠীর বললেও আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বলছে, মোয়াম্মার গাদ্দাফির পতনের খবরে ত্রিপোলির আবু সালিমে আগাম উদযাপনে নামে সরকারবিরোধীরা। এসময় গাদ্দাফিপন্থি স্থানীয় বাসিন্দারা নির্বিচারে গুলি ছোড়ে বিরোধীদের ওপর। তারপর বিজয়ী বিরোধীরা অভিযুক্তদের অনেককে গ্রেফতার করে।

২০১১ সালের অক্টোবরে বিদ্রোহীদের হাতে গাদ্দাফি নিহত হওয়ার প্রায় সাত বছরেরও বেশি সময় ধরে অস্থিতিশীলতার মধ্যে যাচ্ছে লিবিয়া। যদিও পশ্চিমা গোষ্ঠীর সমর্থনপুষ্ট ত্রিপোলি সরকার সম্প্রতি সেখানে শান্তি প্রতিষ্ঠার দাবি করেছে।

সিটিনিউজ সেভেন ডটকম /এম.এস

Please follow and like us:
20

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: